বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ১০:১২ অপরাহ্ন

টেকনাফের মঈন উদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল উন্মোচন

  • প্রকাশের সময়ঃ সোমবার, ১৭ আগস্ট, ২০২০
  • ১৮৬ জন পড়েছেন
শেয়ার করুনঃ

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে টেকনাফের মঈন উদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজে উন্মোচন করা হয়েছে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল প্রতিকৃতি। ১৫ আগস্ট ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ, দুপুরে ম্যুরালটির উদ্বোধন করেন টেকনাফ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম।

 

এই সময় উপস্থিত ছিলেন মঈর উদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজের ট্রাস্টিগণ, শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং অতিথিবৃন্দ।ফলক উন্মোচনের পর বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

অত্র কলেজের একজন ট্রাস্টি সদস্য জসিম উদ্দিন আহমেদ বলেন, “দৃষ্টিনন্দন এই ম্যুরালটি স্থাপন করা হয় ‘নুরুল মোস্তফা একাডেমিক ভবন’ এর নিচ তলায় প্রবেশ দ্বারে কম্পিউটার ল্যাব ঘেষে সুবিশাল মাঠকে সম্মুখ রেখে সুদর্শনীয় জায়গায় যাতে দর্শনার্থীরা সহজেই অবলোকন করতে পারে।” তিনি আরো মন্তব্য করেন, ” কলেজ ক্যাম্পাসে এই ম্যুরালটি দেখে জাতির জনক সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের মাঝে আগ্রহ বাড়বে এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হবে।”

 

এর পরপরই শুরু হয় ১৫ আগস্ট উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল। আবু তৈয়বের সঞ্চালনায়, আ.ন.ম তোহিদুল মাশেক তৌহিদ অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) মঈন উদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান শুরু হয় ৩.৪০ মিনিটে।

 

প্রথমে ভার্চুয়াল মাধ্যমে আলোচনা সভায় যোগদান করেন মঈন উদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের সাবেক ডিন ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।চট্রগ্রাম বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর জাহেদুল হক। ডা.এ.কে এম রেজাউল করিম, বিভাগীয় প্রধান শিশু বিভাগ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ। হেলাল উদ্দিন আহমেদ, সেক্রেটারী মঈন উদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজে ট্রাস্ট। প্রফেসর মমতাজ উদ্দিন কাদেরী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। প্রফেসর কামাল হোসেন, বিভাগীয় প্রধান ইংরেজি, চট্টগ্রাম সরকারি কমার্স কলেজ। ফখর উদ্দিন আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ মঈন উদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজ ট্রাস্ট।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এইচ. এম. ইউনুস বাঙালী ট্রাস্টি ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান টেকনাফ। আলহাজ্ব মো. শফিক মিয়া সদস্য কক্সবাজার জেলা পরিষদ ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান টেকনাফ। নুরুল আবচার, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার টেকনাফ  মাহবুব মুরশেদ সভাপতি, হ্নীলা উচ্চ বিদ্যালয়।

 

ট্রাস্টিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আবুল কালাম আজাদ, জহির আহমেদ, হাজি এমদাদ উল্লাহ, মাওলানা আবুল কালাম , শাকের আহমেদ, ইব্রাহিম খলিল প্রমুখ। উপস্থিত বক্তাদের মধ্যে ইউনুস বাঙালী বলেন, “বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ মুদ্রার এপিট ওপিট। যতদিন বাংলাদেশ থাকবে ততদিন বাংলার মাটি ও মানুষের হ্রদয়ে মিশে থাকবে বঙ্গবন্ধুর নাম।”

 

মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নুরুল আবছার বলেন, ” এই কলেজে মাদকের ছড়াছড়ি নেই, মোবাইল, মটর বাইক বহন করা নিষেধ যার ফলে তারা পড়ালেখার মান ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে এবং ফলাফল বিবেচনায় জেলায় শীর্ষ স্থান ধরে রাখার সুনাম অটুট রাখছে।”

সবশেষে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সদস্য এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে নিহত শহীদদের আত্তার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মুনাজাত করা হয় ।
মন্তব্য দিন ...

শেয়ার করুনঃ
মিস করলে পড়ে নিন ...